আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করল লজিস্টিক সার্ভিস মহাসাগর এক্সপ্রেস

আপডেট: 2020-02-09 13:59:26

বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করল ই-লজিস্টিক্স ব্র্যান্ড মহাসাগর এক্সপ্রেস (mohasagor.express), ই-কমার্স সেক্টরে নতুন উদ্যোক্তা ও প্রতিস্ঠিত সব ই-কমার্স কোম্পানীকে লজিস্টিক সাপোর্ট দেওয়ার জন্য আজ শুক্রবার (৭ জানুয়ারী ২০২০) রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে প্রতিষ্ঠানটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মহাসাগর এক্সপ্রেসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো: মোশারফ হোসেন সহ লেইসফিতা ডট কমের ফাউন্ডার অর্ণব চৌধুরী, কিনলে ডট কমের ফাউন্ডার এন্ড সিইও সোহেল মৃধা, অথবা ডটকমের ম্যানেজার নূর মোহাম্মদ রাসেল, এনআরবি বাজার এর ম্যানেজার আহসান হাবীব আকাশ, বিজিবি অনলাইন লি: এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব মো: শফিকুল ইসলাম, ডিটেক্স এর স্বত্ত্বাধিকারী আরিফুল ইসলাম, চাহিদা ডট কমের ফাউন্ডার ও সিইও রাজু আহমেদ, মদিনা শপ ডট কমের ফাউন্ডার এন্ড সিইও মো: শাহাদাত হোসাইন, তাশু শপের ফাউন্ডার শ্রাবণ রাজ, সাশ্রয় বিডি ডট কমের স্বত্ত্বাধিকারী মো: তাশরীফ। এছাড়াও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আরও কিছু সংখ্যক ই-কমার্স উদ্যোক্তা।

বাংলাদেশে দ্রুত বাড়ছে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী। অনলাইনে কেনাকাটা করার আগ্রহ বাড়ছে সবার মধ্যে। বাংলাদেশের বাজারকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করেই মহাসাগর এক্সপ্রেস যাত্রা শুরু করেছে। ইতিমধ্যে সাভার, নারায়নগঞ্জ, গাজীপুর, চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, নোয়াখালী, খুলনা ও সিলেটে মহাসাগর কাজ শুরু করেছে। মহাসাগর এক্সপ্রেসে রয়েছে ক্যাশ অন ডেলিভারী, রিটার্ন ও রিপ্লেস সহ অন্যান্য সুবিধা।

অনুষ্ঠানে মহাসাগর এক্সপ্রেসের প্রতিনিধিরা যথাসময়ে মার্টেন্টদের পেমেন্ট সঠিক সময়ে পরিশোধ করবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন। সবচেয়ে কম খরচে পণ্য ডেলিভারী এবং সাথে কোন রিটার্ন চার্জ নেই। মহাসাগরের কোন এজেন্সী থাকবে না এবং সম্পূর্ণ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পণ্য পৌঁছে দেবেন গ্রাহকের কাছে। এ কারনে সবচেয়ে কম খরচে এবং দ্রুততম সময়ে ডেলিভারী দেওয়া সম্ভব বলে জানান।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মহাসাগর এক্সপ্রেস অর্ডার করার পরের দিনের মধ্যে পন্যের ডেলিভারি দিবে এবং সেটি অনলাইন শপিংকে আরো আকর্ষণীয় করবে।

তারা বলছেন- অনলাইন সেলার এবং কাস্টমার দুই জনেরই প্রধান সমস্যা হল সময়। সেলারের পণ্য দ্রুত ডেলিভারি করতে চায় এবং কাস্টমার পণ্য কেনার সাথে সাথেই তা পেতে চায়। আর সে কারণেই মহাসাগর এক্সপ্রেস দ্রুততার সঙ্গে পন্যের ডেলিভারি নিশ্চিত করতে চায়।

কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ বিষয়ে বলেন, তারা যদি রাত বারোটার মধ্যেও পার্সেল পেয়ে যান তাহলেও ঢাকার মধ্যে পরদিন সন্ধ্যা ছয়টার আগে ক্রেতার কাছে তা পৌঁছে দিবেন আবার ঢাকার বাইরে নির্দিষ্ট কিছু স্থানের ক্ষেত্রে এই পন্য পরদিনেই ডেলিভারি করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ঢাকা শহরে ট্রাফিক জ্যাম অত্যন্ত বড় একটি চ্যালেঞ্জ। আর এটিই অনলাইন শপিং এবং পার্সেল ডেলিভারি ব্যবসার জন্যে সম্ভাবণার। কারণ মানুষ মার্কেটে কম যেতে চাইবে এবং তারা অনলাইনেই কেনাকাটার জন্যে ছুটবে।

উল্লেখ্য, মহাসাগর এক্সপ্রেস mohasagor.com (ই-কমার্স মার্কেট প্লেস) এর-ই একটি লজিস্টিক সার্ভিস।