পরীক্ষা নিয়ে মজার কৌতুক

আপডেট: ২৬ জানুয়ারী ২০১৯, ১২:৪১

১। আমরা কেন পরীক্ষার খাতায় etc লিখি?

কারন এটার মানে হলঃ

E-End of
T-Thinking
C-Capacity

কিন্তু দুঃখের বিষয় টিচাররা আমাদের এই অনুভূতি কখনই বুঝে না।

২। বাবাঃ কি ব্যাপার! এই সাবজেক্ট এ তুমি এত কম পেয়েছো কেন?

ছেলেঃ অনুপস্থিতি

বাবাঃ কি? তুমি ওই পরীক্ষার দিন অনুপস্থিত ছিলে?

ছেলেঃ আমি না, আমার সামনের জন!

৩। ছাত্রঃ দোস্ত দারুন খবর। স্যার বলছে আজকে পরীক্ষা নিবেই রোদ থাক বা বৃষ্টি হোক।

সহপাঠিঃ এতে এত উল্লাসের কি আছে?

ছাত্রঃ বাইরে তুষারপাত হচ্ছে!

৪। এক পুলিশ নিয়োগ পরীক্ষায় একজনকে জিজ্ঞাসা করা হল, যদি তোমার আপন মা কে এরেস্ট করতে বলা হয় তুমি কি কবে?

সে উত্তর দিল, I will call for Back up”।

৫। পরীক্ষা হচ্ছে গার্ল ফ্রেন্ডএর মত

১। অনেক বেশী, মাত্রাতিরিক্ত প্রশ্ন

২। বোঝা অনেক কঠিন

৩। অনেক বেশী ব্যাখ্যা দরকার

৪। ফলাফল সব সময়ই একি। অকৃতকার্য।

৬। বাবাঃ তোমার পরীক্ষা কেমন হয়েছে?

ছেলেঃ আমি প্রায় সব গুলোতেই ১০০ এর কাছাকাছি

বাবাঃ ১০০ এর কাছাকাছি বলতে কি বোঝাচ্ছো?

ছেলেঃ নাহ মানে, প্রশ্নগুলো আমাকে কোন ঝামেলাই ফেলে নি, যা ঝামেলা শুধু অই উত্তর গুলো নিয়েই।

৭। ছাত্রঃ আমি পরীক্ষার শুন্য পেতে পারি সে আমি চিন্তাই করতে পারি না। শুন্য কোন মতেই পাবার কথা না।

শিক্ষকঃ আমি মানি সেটা, কিন্তু বাবা, এটাই সর্বনিন্ম নাম্বার যেটা খাতায় দেয়া যায়।

৮। পরীক্ষায় ছাত্র অনেক ভালো প্রস্তুতি নিয়ে এসেছে পরীক্ষা দিতে। কিন্ত পরীক্ষার হলে কিছুই কমন পরে নাই। একটা প্রশ্ন আসছে “মাতৃদুগ্ধের ৩টি উপকারিতা বর্ণনা কর”। অনেক চিন্তা ভাবনা করে শেষমেশ লিখলঃ

১। সিদ্ধ করার দরকার নেই

২। বিড়াল চুরি করে খেতে পারে না

৩। যখন দরকার তখন পাওয়া যায় 

৯। একটি সত্যি ঘটনা। এক দর্শনের ছাত্র পরীক্ষার হলে গিয়ে দেখে যে প্রশ্ন হিসাবে লেখা “এটা কি প্রশ্ন?”

উত্তর পত্রে একটাই লাইন ছিল যাতে লেখা “ঐটা যদি প্রশ্ন হয় তাহলে এটা একটা উত্তর”।

ছেলেটা পরীক্ষায় A গ্রেড পেয়েছিল।

১০। একজন সৃষ্টিকর্তার কাছে অভিযোগ করছেঃ-

 জন্ম, মৃত্যু জীবনে একবার আসে। 

ভালোবাসা জীবনে একবার আসে। 

বিবাহ জীবনে একবার আসে। 

কিন্তু হতচ্ছাড়া পরীক্ষা কেন আসতেই থাকে আর আসতেই থাকে? 

১১। মুখস্থ ম্যাডাম বলেছে: প্রতিটি প্রশ্নের উত্তর মুখস্থ করতে হবে। সৌরভ করছেও তা। সে বাড়িতে শিখেছে, আমাদের দেশের কয়েকটি ফলের নাম-আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু, পেয়ারা প্রভৃতি। পরীক্ষায় প্রশ্ন এল, দেশের পাঁচটি ফলের নাম লেখো। সৌরভ হিসাব করে দেখল, ও শিখেছে ছয়টি ফলের নাম আর লিখতে হবে পাঁচটির নাম। তারপর সৌরভ লিখল-আমাদের দেশের পাঁচটি ফলের নাম হলোঃ ১· আম, ২· জাম, ৩· কাঁঠাল, ৪· লিচু, ৫· প্রভৃতি!

১২। রচনা: ছাত্রজীবন: স্কুলে বার্ষিক পরীক্ষা আরম্ভ হলো। পরীক্ষার হলে এক ছাত্রী জোরে জোরে কাঁদছে। শিক্ষকঃ তুমি কাঁদছ কেন? ছাত্রীঃ আমার রচনা কমন পড়েনি। শিক্ষকঃ কেন? কী এসেছে? ছাত্রীঃ এসেছে ‘ছাত্রজীবন'। স্যার, আমি তো ছাত্রী। ‘ছাত্রজীবন' লিখব কীভাবে।

১৩। শুধু একটা ভুল-বাবা: খোকা, পরীক্ষা কেমন দিলি? ছেলে: শুধু একটা উত্তর ভুল হয়েছে। বাবা: বাহ্! বাকিগুলো সঠিক হয়েছে? ছেলে: না, বাকি গুলোতে লিখতেই পারিনি।

১৪। স্কুল পড়ুয়া দুই বন্ধুর পরীক্ষার শেষে স্কুল মাঠে দেখা- ১ম বন্ধুঃ কী রে, তোর পরীক্ষা কেমন হলো ? ২য় বন্ধুঃ পরীক্ষা ভাল হয়নি রে ! তবে ৫ নম্বর নিশ্চিত পাবো । ১ম বন্ধুঃ কীভাবে ? ২য় বন্ধুঃ পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার জন্য ছিল ৫ নম্বর ! তাই আমি পরীক্ষার খাতায় কলমের একটা আচড়ও দেইনি ! তাই ৫ নম্বর নিশ্চিত পাবো । ১ম বন্ধু :- হায়! সর্বনাশ হয়েছে- আমি ও তো তোর মতো পরীক্ষার খাতায় কলমের একটা আচড়ও দেইনি ! আমাদের দুই জনের খাতাই একই রকম দেখলে- শিক্ষিকা মনে করবে না তো যে আমরা দুজনে টুকলি করেছি!